স্বপ্ন ! ভালোবাসার গল্প

/স্বপ্ন ! ভালোবাসার গল্প

স্বপ্ন ! ভালোবাসার গল্প

ভালোবাসার গল্প

প্রতিদিনের মত আজও ব্যালকনিতে দাড়িয়ে আছে মেয়েটি । গত ৬ মাস ধরে এই একই সময়ে দাড়িয়ে থাকে সে ব্যালকনিতে, উদ্দেশ্য নাম নাজানা সেই পথিককে একটুখানি দেখা । নাম নাজানা পথিকের একটা নামও দিয়েছে মেয়েটি – “স্বপ্ন” । পথিকটি স্বপ্ন নয়তো আর কি! রোজ সকাল ৭ঃ৩০ থেকে ৭ঃ৪৫ এর মধ্য বাসার পাশের মেইন রাস্তা ধরে যায় সে । সে যে কখন ফেরে বা কোন রাস্তা দিয়ে ফেরে সেটা আল্লাহই জানেন । একদি্ন তো সকাল ৭ঃ৩০টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত ব্যালকনিতে বসে ছিল মেয়েটি খাওয়া-গোসল ভুলে, তবুও পথিকের পদচিনহ পড়েনি এই রাস্তায় ।

সেই প্রতিদিনের মত পথিকটি যথারীতি একইসময়ে মেয়েটির বাসার সামনে দিয়ে চলেছে । সাদা সার্ট এ তাকে দারুণ লাগলেও আজ খুবই রাগ লাগছে মেয়েটির, কারণ জ্যামে আটকে থাকা একটি রিকশাই বসা দু’টি মেয়ে তাকিয়েই আছে তার স্বপ্নের দিকে । রাগ বেশি ওই মেয়ে দু’টির উপর নয় বরং পথিকের উপরই লাগছে । আজ কি হল তার? অন্যদিন্ তো রকেট গতিতে চলে, আজ এতো ধীরে কেন? কি হয়েছে পায়ে? আবার মেয়ে দুইটাকে দেখা হচ্ছে! তার দিকেতো কখন তাকাইনা । চোখে সমস্যা, না উপরে তাকালে চোখ ঝলসে যাবে! ভালোবাসার গল্প

আজ এক সপ্তাহ মেয়েটি তার স্বপ্নকে দেখেনি । কি হল পথিকের? ৮দিন আগে দেখেছিল রিকশা করে যেতে যদিও সে হেঁটেই যায় সবসময় । সেদিন বড় বিমর্ষ দেখাচ্ছিল তাকে । তারপর এক সপ্তাহ চলে গেল তবুও দেখা নেই তার । রোজই ভাবে মেয়েটি যাবেনা আর ব্যালকনিতে, শুধু শুধু সময় নষ্ট করার কি অর্থ? তবুও যথা সময়ে সে ব্যালকনিতেই থাকে । এক অজানা আশঙ্কা ঘিরে রাখে তাকে সবসময় । ঠিক আছেতো পথিক? শেষের দিন এতো বিমর্ষ কেন দেখাচ্ছিল? কেনই বা দেখা নেই তার? এই প্রশ্নগুলোর উত্তরই খুজে ফেরে সে সারাক্ষণ ।

ভালোবাসার গল্প

১০দিন পার হয়ে গেল তবু স্বপ্ন অদেখাই রয়ে গেল । কেন মেয়েটি নাম জানেনা তার? নাম জানলে তো ফেবুতে সার্চ দিতে পারত । কেনই বা দূর থেকে দেখে গেছে তাকে । কেন সামনে যায়নি । নিজের প্রতি নিজেরই রাগ লাগে তার । আর ধৈর্য রাখতে পারছেনা সে । কিন্তু কিভাবে খুজবে সে তার পথিককে, নামটাও যে জানে না ।

আরো ৫দিন কেটে গেল । পথিককে নিয়ে ভাবতে ভাবতেই ঘুমিয়ে গেল মেয়েটি । হঠাৎ ঘুম ভেঙ্গে গেল । উঃ নিশ্বাস বন্ধ হয়ে আসছে কেন ? জানালা খোলা তবু রুমটাকে এত বদ্ধ কেন লাগছে । মেয়েটি দ্রুত রুম থেকে ব্যালকনিতে আসলো । এ কি! রাস্তায় এত রাতেও জ্যাম কেন ? এখানে এত মানুষ ভিড় করে আছে কেন ?

কিছুতেই আর ঘুম আসছেনা তার । পথিকের ভাবনা তাকে অস্থির করে তুলছে ।

অবশেষে রাতের আধার কেটে সকালের সূর্যের উদয় । বাসার কেউ জাগেনি এখনও । ভোরের সূর্যকে বড় ভয় লাগছে তার । দিনটাকে অচেনা মনে হচ্ছে ।

দারোয়ান এতক্ষণে হয়তো পেপার রেখে গেছে দরজায় । সংবাদপত্রে আগ্রহ না থাকলেও আজ পড়তে ইচ্ছা করছে খুব । বিছানা থেকে উঠে এসে পত্রিকা হাতে তুলে নিল………

মাথা ঘুরছে মেয়েটির, চোখ যেন অন্ধকার বালুচরের দিকে তাকিয়ে,
এখানে তার স্বপ্নের ছবি কেন! তাও রক্তমাখা সার্টে রাস্তাতে শুয়ে । দ্রুত হৃদস্পন্দন বাড়তে লাগলো । কাপা কাপা চোখ নিয়ে সে শিরোনামের দিকে তাকালো –

“এক বেকার যুবকের আত্মহত্যা”

লাইক করুন , কমেন্ট করুন এবং শেয়ার করুন ।

ভালোবাসার গল্প

ভালোবাসার গল্প

বাংলা গল্প এবং ব্লগ লিখতে এখানে রেজিস্ট্রেশন করুন 

Sponsored Ads

Facebook Comments

2018-09-06T12:53:11+00:00

About the Author:

Leave A Comment

Shares